bangla love story, valentine’s day 2020

Bangla love story, valentine's day 2020

New bangla love story, valentine’s day 2020

Bangla love story পড়তে ভালবাসেন? তাহলে এই Valentine’s Day 2020 গল্পটা আপনার দারুণ লাগবে। এই গল্পটাকে আপনি Top bangla love story বলতে পারেন।

আজ 14 February, valentine’s day 2020. দেখতে দেখতে পাঁচটা বছর পেরিয়ে গেছে আমাদের ব্রেকাপ হয়েছে। আর দেখাও হয় নি। কথাও হয় নি। কেউ কারু ফেসবুক ফ্রেন্ডও নই। মোবাইল নম্বরও নেই। আছে শুধু হারানো পুরানো স্মৃতি।

আর সেই স্মৃতিগুলো আছে বলেই আজকে অকারণে একাই গন্ধেশ্বরী নদীর ধারে এসে বসে আছি। আগে মাঝে মাঝেই মিত্রার সঙ্গে গন্ধেশ্বরী নদীর ধারে এসে বসতাম।

চোখের পাতায় সন্ধা লাগত, নদীর শিরশিরে বাতাস দুজনকে কাছাকাছি এনে দিত বারবার। ২০১২ সালে এমন Valentine’s day তেই মিত্রাকে প্রথম চুমু খেয়েছিলাম।

আজকে দুজনই দুজনার কাছে হারিয়ে যাওয়া একটা Bangla love story মাত্র। মনের ভেতরে স্মৃতির জল বয়ে যায়, আবেগের ঢেউ ভাঙে কিন্তু মিলনের ডাক আসে না।

আরও পড়ুন,- Bangla shayari

Bangla love story part one 

এখন পশ্চিমা বাতাসে কয়েকটা বুনোহাসের মাথার পালক তিরতির করে কাঁপছে। সূর্যের লালিমা ছড়িয়ে পড়ছে গন্ধেশ্বরীর বুকে; কপালে।

আমি বসে আছি অনেক অনেক দিন আগের একটা বিকেলের বুকে। আমার পাশে মিত্রা। আমার কাঁধে মাথা রেখে ভালবাসাটার ভবিষ্যৎ ভাবতে ভাবতে মিত্রার চোখে মুক্তোর মতো টলমলে দুফোটা জল।

আমার গলা ভারি হয়ে এসেছে, “যদি আমরা হারিয়েও যাই, আমাকে ভুলে যেও না মিত্রা। হতে পারে ভবিষ্যৎ আমাদেরকে মেনে নিল না। হতে পারে সমাজ আমাদেরকে দূরে সরিয়ে দিল। তবুও তুমি মনে রেখো…”

মিত্রা কথা বলে না। আরও জোরে জড়িয়ে ধরে। আরও আবেগে ঝরতে থাকে ওর চোখ দুটো। এমন সময় কোথা থেকে একটা ফিঙে এসে বনশিরীষ গাছের মরা ডালটায় বসে। আমাদের দিকে তাকিয়ে থাকে কিছুক্ষণ, তারপর আবার উড়ে যায় নদীটার ওপারে।

Bangla love story, valentine's day 2020

পাখিটার এভাবে আসা আর যাওয়াটা যেন কীসের ইঙ্গিত দিয়ে যায়। আমার মনের ভেতর মিত্রার চলে যাওয়ার সম্ভাবনাটা আরও বেশি জাঁকিয়ে বসে।

Hot bangla love story, valentine’s day 2020

আর ঠান্ডা বাতাসে বসে থাকা ঠিক হবে না মনে করে উঠে দাঁড়ালাম। চোখের পাতায় শিশিরের মতো স্মৃতির জল লেগে আছে।

এমন সময় পিছন থেকে ভেসে এল, “ভাল আছো প্রলয় দা”

এই গলার আওয়াজ আমার চেনা। এই গলার আওয়াজ আমাত অতীত বর্তমান ভবিষ্যৎ সব এলোমেলো করে দিতে পারে। কিন্তু মিত্রা এমন সময় এখানে…. তাহলে মিত্রাও কী…

পিছন ফিরে তাকালাম, এই মিত্রা আর নয় সে আমার সেই মিত্রা। এই প্রথম সিঁদুর পরে মিত্রাকে দেখলাম। পাঁচবছর পেরিয়েছে ওর বিয়ে হয়েছে।

মিত্রাও আমার দিকে অপলক ভাবে তাকিয়ে। আমার মুখ থেকে শব্দরা এসেও ফিরে যাচ্ছে, ভাষা হারিয়ে যাচ্ছে আমার।

  • “ভাল আছো মিত্রা? তুমি এখন এখানে? “
  • ভালমন্দর কথা জানি না। এখানে এসেছি… আসলে তুমি এখানে যা হিরিয়েছ আমিও হারিয়েছি তাই। সেই জিনিসটার খোঁজেই হয়তো দুজন এখানে।
  • কিন্তু তোমার বাড়িতে খোঁজ করবে…
  • বাড়ি…. হাসে মিত্রা। থাক ওসব কথা তুমি বিয়ে করেছো?
  • বিয়ে করার আর ইচ্ছে হল কই। বিয়ে করলে কি এখন এভাবে এখানে…
  • কেন আমি তো বিয়ে করেও এসেছি এখানে। বিয়ে করলেই কি অতীত মারা যায়? স্মৃতি মুছে যায় ?
  • না আমি তা বলি নি।
  • তুমি তো তাই বললে… থাক এত বছর পর দেখা হল, তর্কে না জড়ানই ভাল। ভাবি নি এখানে তোমাকে পাব, আমাদের অতীত দেখতে এসে আমাদের দেখা হয়ে গেল। জীবন সত্যিই অদ্ভুত। কে কবে কখন কোথায় হারায় আবার কখন ফিরে আসে কেউ জানে না…

আমার সামনে এগিয়ে আসে মিত্রা। সন্ধার ঝাপসা আলোয় ওর ঠোঁটদুটো কাঁপতে দেখা যায়। কিছু একটা বলতে গিয়েও নিজেকে সামলে নেয় মিত্রা। চুপ করে দাঁড়িয়ে থাকে। যেন রবি ঠাকুরের bangla love story র নির্বাক নায়িকা।

আরও পড়ুন,:- Bangla choto golpo

মিত্রাকে এতবছর পর এত কাছে পেয়ে আমার বুকের ভেতরেও কেমন যেন উথাল-পাথাল চলছে।নদীর মাতাল বাতাস মিত্রার শরীরে মিশে আরও বেশি মাতাল হচ্ছে যেন। হঠাৎ করেই ভাষা হারিয়েছে চারচারটা ঠোঁট।

★★★

কতক্ষণ দুজনে  চুপচাপ দাঁড়িয়ে ছিলাম নিজেরাই জানি না। এখন অন্ধকারে কিছুই দেখা যায় না। মিত্রা আমার বুকে মাথা রেখে ওর না পাওয়া ভালবাসার উষ্ণতা ছড়িয়ে যাচ্ছে। পাগল করছে আমাকে।

আজ এতবছর পর এভাবে মিত্রাকে পাব আশা তো দূরের কথা কল্পনাও করি নি। দুটো শরীর জুড়ে ভালবাসা আর না পাওয়ার ঝড় বয়ে যাচ্ছে। দুটো শরীর নিজেদেরকে উজাড় করে দিচ্ছে এখন।

আরও পড়ুন,- Bangla chudi golpo

এভাবেও ভালবাসা ফিরে ফিরে আসে

এভাবেও ভালবাসা আরও ভালবাসে

এভাবেও ভালবাসা বুকে ঝড় বয়ে আনে

এভাবেও ভালবাসা খুঁজে পায় ভালবাসার মানে।

Valentine’s day তে এভাবে আবার মিত্রা আমাকে ভরিয়ে দিয়ে যাবে কে আর ভেবেছিল। এতগুলো বছর মিত্রার স্মৃতি আঁকড়েই পড়ে থেকেছি। আজ সারারাত সব কিছু ভুলে সব আবরণ খুলে আমার বুকে জেগে থাকবে মিত্রা।

Last  part of Bangla love story 2020 valentine’s day 

সকালের আলো ফোটার আগেই মিত্রা ফিরে গেছে। জানি না ও বাপের বাড়িতে ফিরে কী বলবে। আমার সারা শরীর জুড়ে মিত্রার শরীরের গন্ধ এখনো আমাকে মাতাল করছে।

সম্পর্কে থাকার সমতেও কোনওদিন মিত্রা আমাকে খুব একটা ঘনিষ্ঠ হতে দেয় নি। চুম্বন পর্যন্তই ছিল সীমা। বলত, “বিয়েত পর সবই তো তোমার, ধৈর্য ধরে বসে থাকো…” হাসত মিত্রা। লজ্জায় রাঙা হয়ে যেত।

অথচ আজ নিজের হাতেই আমাকে উজাড় করে নিঁগড়ে দিয়েছে নিজেকে। যাছিল গোপন যাছিল অজানা সবই আজ অগোপন সবই আজ চেনা। মিত্রার গোপন উগ্র গন্ধ আমার ঠোঁটে বুকে গোপনে গভীরে।

……. হঠাৎ মোবাইলের রিঙ বাজতে শুরু হল। পলাশ কল করছে।

  •  হ্যাঁ বল
  • কোথায় ছিলি রে সারা রাত। তোর মা তো চিন্তায়… একটা ফোন অন্তত…
  • আসলে হয়েছিল কি…
  • ওসব পরে শুনব। জলদি বাড়ি ফের। আমি তো ভাবলাম তুই বালুচরি মিত্রাদের বাড়ি গেছিস।
  • কেন মিত্রাদের বাড়ি গেছি কেন মনে হল তোর!
  • তুই শুনিশ নি। পলাশের গলাটা কেমন যেন ভারী হয়ে গেল হঠাৎ।
  • কী
  • সত্যিই কিছুই জানিস না তুই! তাহলে তুই এখন আছিস কোথায়?
  • আমি কোথায় আছি পরে বলব। তুই আগে বল কী হয়েছে
  • গতকাল সন্ধায় মিত্রা আত্মহত্যা করেছে, কেন আত্মহত্যা করেছে কেউ জানে না। ওর হাতে পাঁচ বছর আগের Valentine’s day card ছিল। তোর দেওয়া কার্ড। তাই কাল রাতে তোর বাড়িতে পুলিশ এসেছিল… তুই বাড়ি ফের জলদি।
  • মি-ত্রা গত কাল রা-ত্রে….. আমার আর কথা বার হচ্ছে না।

নদীর চর থেকে ভেসে আসা একটা ঠান্ডা বাতাস আমাকে পাগল করে দিয়ে যাচ্ছে। মনে হচ্ছে আমার হাত পা এমন কি শরীরটাও যেন হালকা হয়ে গেছে। যেন আমি নদীর বাতাসে ভাসছি। পুরো বাতাস জুড়ে মিত্রার শরীরের গন্ধ ছড়িয়ে, আমি পাগল হয়ে যাচ্ছি যেন।

পূবের আকাশ লাল হয়ে আসছে। আর আমার যেন কেমন অসহ্য লাগছে। তাকাতেই পারছি না। এমন সময় আবার পিছন থেকে মিত্রার গলা ভেসে এলো, “সকাল হচ্ছে…. পালিয়ে চল পালিয়ে চল”

কিন্তু কোথায় আমাকে নিয়ে যাবে মিত্রা ?

সমাপ্ত

আপনি যদি Bangla love story ভালবাসেন তাহলে এই Valentine’s day 2020 গল্পটাও আশাকরি আপনার ভাললাগবে। আপনার মতামতের অপেক্ষায় রইলাম।

Read morebangla love story, valentine’s day 2020

Premer golpo, যে কথা হয়নি বলা

Premer golpo, যে কথা হয়নি বলা

একটা মজার কথা শোন এখন সারা পৃথিবীটাই আমার ঘর। কোনও দেওয়াল নেই আমার। আমি গ্রীষ্মের আলিঙ্গনে ঘামি, বর্ষায় আঝোরে ভিজি, শীতে… হ্যাঁ এবার শীতে কারা যেন কম্বল দিয়েছিল গায়ে। এই তো এটাই সেই কম্বলটা। তোকে সব বলব… সব। দেখা হোক একবার। এবার আমি বলব তুই শুনবি চুপটি করে। দাঁড়া দাঁড়া পরে কথা হবে, ওই তো … Read more Premer golpo, যে কথা হয়নি বলা