Bangla golpo kobita uponyas choti golpo bangla shayari sob ache ekhane. Bangla koster kobita প্রেমের কবিতা, সিঁদুর চুরি – Bengali website
X

Bangla koster kobita প্রেমের কবিতা, সিঁদুর চুরি

Bangla koster kobita অনেকেই পছন্দ করেন, তাই এমন এক কষ্টের কবিতা দিলাম যা চোখে জল এনে দেবে। কারণ বেশিরভাগ ভালবাসায় কষ্টের অপার বিস্তার। আর কষ্টের বিস্তারের জন্যই কষ্টের কবিতা অনেকেই ভালবাসেন।

Bangla koster kobita,- সিঁদুর চুরি

Koster kobita হয়তো অনেক পড়েছেন কিন্তু আজকের কবিতাটা আপনার মনে থাকবে অনেকদিন। Premer kobitar ভেতর কষ্টের হাহাকার দিলাম আজ।

অর্থের অভাবে আর মাধ্যমিক পেরনো গেল না
পেটের টানে ট্রেনে চেপে মুম্বাই ।
তুই ভাবলি প্রতারক ।তুই ভাবলি ঠক । তুই কাঁদলি।
ভুল বানানে হলেও তোকে লিখলাম চিঠি,
পরিপাটি কোরে। উত্তর এলনা, আবার লিখলাম,
আবার । আবার । তাও অধরা রইল উত্তর ।

দাঁতে দাঁত চেপে মনকে বললাম শরীর খারাপ

আজ আর খাব না থাক। মাঝে মাঝেই এমন হল
তাতে কিছু টাকা জমল পকেটে,
তাই দিয়ে একটা সিঁদুর কৌটা আর একটা শাড়ি কিনলাম ।
ভাবলাম দায়িত্ববান স্বামী, আবার চিঠি দিলাম,
তুই হয়ত ভাবলি পাগলামি, তাই উত্তর এল না।

তোর গায়ের সাথে একটা অদ্ভুত মিল পেতাম শাড়িটায়

ঘুমালাম কখনো বুকে কখনো রেখে মাথায় ।
পাশের বাড়ির বৌদি যখন তার দুমাসের ছেলেকে চুমু খেত
ছাতে দাঁড়িয়ে ।জানিস একটা অচেনা শিহরণ হত রক্তে ।

Bangla prem ebong koster kobita by Bappaditya Mukhopadhyay


একদিন শুনলাম দাদা ভাইএর বিয়ে ফাল্গুনে,

নানান বাহানায় ছুটি চাইলাম বারবার
কিছুতেই কিছু উপাই হল না আর, রাতে কাঁদলাম।
এপাস ওপাশ করলাম শক্ত বিছানায় ।
বড় একা বড় অসহায় লাগলো নিজেকে ।
একদিন হুট কোরে শুনলাম ছুটি মঞ্জুর, টিবি হয়েছে আমার।
কে বলে ভগবান নেই!  দেরিতে হলেও ছুটিত এলো ।
ছুটলাম ট্রেন ধরতে। খুশিতে বার বার আলোর ঝিলিক বেরল
মুখে । জানি না কীভাবে আমার সহরে আমারে এনেদিল যান্ত্রিক বন্ধু ।
আমি ছুটলাম । বন, পুকুর পাড়, তাঁতিদের ডোবা পেরিয়ে আমি ছুটলাম,
আমি ছুটলাম স্বাপ্নের ভেতরে, পকেটে সেই সিঁদুর কৌটা, হাতে
হলুদ শাড়ি। আরও আরও জোরে আমি ছুটলাম । মুখের খুসি
গড়িয়ে নামলো বুকে । মুখে হাত চেপে আমি ছুটলাম।
ঐ ই ই ই তো আমাদের গ্রাম দুটো নদীর ওপারে । আরও আরও
জোরে আমি ছুটলাম । আরও ও ও জোরে ।
তার পর কিছু মনে নেই।

যখন চোখ খুল্লাম, তোর হাতে পাখা, তোর হাতে শাঁখা

সিঁথিতে সিঁদুর । হাতড়ে দেখতে চাইলাম পকেটের সিঁদুর কৌটাটা
নাগাল পেলাম না, সেলাইনে টান পড়ল । পাস ফিরে দেখলাম
হলুদ শাড়িটাও খুশির রঙে লাল হয়ে গেছে । কান্নাটা কাশির সাথে মিশে চেনা গেলনা । এতো ব্যথার জমানো আরব সাগরের নোনা জল
চোখের কোনায় শুকিয়ে গেল । আমি অপলক ভাবে চাইলাম ওই মুখে
অজানা উত্তর, প্রশ্নের ভেতর রয়েগেল । আজও অচেনা উত্তর
বুকের ভেতর ঘুরপাক খায়। জানি সইবেনা তাও মনটা শুনতে চায়
আমার লোকানো সিঁদুরের সন্ধান কতদিন আগে; কীভাবে দাদাভাই পেল!! 

This website uses cookies.

Read More