X

শ্রাবন্তী তৃতীয়বার বিয়ের পিঁড়িতে আজ চন্ডীগড়ে আনুষ্ঠানিক ভাবে রোশনের সঙ্গে একুশ পাকে ঘুরবে শ্রাবন্তী। আগে সাত প্লাস সাত হয়ে গেছে আরও সাত পাক নেবে আজ।

শ্রাবন্তীর বিয়ে

আজ তৃতীয়বার বিয়ের পিঁড়িতে শ্রাবন্তী

হ্যাঁ প্রথমটায় আমিও আপনার মতোই আঁতকে উঠেছিলাম। একবার দুবার নয় তিন তিনবার বিয়ের পিঁড়িতে বসলেন বঙ্গতনয়া শ্রাবন্তী। রোশনের সঙ্গে সম্পর্ক প্রায় একবছর হতে চল্লল। এই একবছরে জমেছে প্রেম, পরিণাম আবার বিয়ে। গত সোমবার গোপনে বাগদান হয়ে গেছে। আজ শুভকাজ সম্পন্ন হবে।

রোশন পেশায় একটি এয়ারলাইসেন্স কেবিন ক্রু সুপারভাইজার। শ্রাবন্তীর বিয়ে কলকাতায় নয় হচ্ছে চণ্ডীগড়ে। রোশন চণ্ডীগড়ের ছেলে। বিয়ের এক সপ্তাহের ভেতর কলকাতায় ফিরবেন দুজনে। বিয়ের বাগদান অনুষ্ঠান হয়েছে অত্যাধুনিক ভাবে। যাতে কেউ কোনও ছবি তুলতে না পারে সেই জন্য আগত অতিথিদেরকে অনুষ্ঠানের সময় মোবাইল ব্যবহার করতে দেওয়া হয়নি।

শ্রাবন্তী রোশন

পরিচালক রাজীব বিশ্বাসের সঙ্গে শ্রাবন্তীর প্রথম বিয়ে হয়েছিল ২০০৩ সালে। একটি ছেলেও আছে, ঝিনুক। ঝিনুক মায়ের সঙ্গেই থাকে। প্রথম বিবাহ বিচ্ছেদের পর আবার আসে প্রেম। এবার মডেল কৃষণ বিশ্বাসের সঙ্গে। এবিয়েও টেকেনি। বিয়ের পর পরই শুরু হয় মনোমালিন্য। পরিণাম, বিচ্ছেদ।

হৃদয়ের হার্দিক গতিতে (১৫০+ স্টাইক রেট) শ্রাবন্তী আবার প্রেমে পড়ে। প্রেম গিয়ে পড়ে বিয়ের পিঁড়িতে। যদা যদা হি ধর্মস্য… সরি ভুল বলছি। যদিদং হৃদয়ং তব তদিদং হৃদয়ং মম। সাত তিনে একুশ পাকে বাঁধা পড়লেন বাংলার এই নায়িকা। এবারেও দর্শকদের দাবী পাক যেন না খুলে যায়।

শ্রাবন্তীকে শুভেচ্ছা

না বিয়েটা ঠাট্টার বিষয় নয়। শ্রাবন্তী ভালবাসায় বাঁচতে চায়। ভাল থাকতে চায়। কপাল সবার সাথ দেয় না। আশাকরি অগামীর দিনগুলো শ্রাবন্তী ও রোশনের সুন্দর হবে। জীবন এক এবং অনুপম জীবনকে জীবনের মতো উপভোগ করাই জীবন। শুধুমাত্র মেনে নেওয়া আর মানিয়ে নেওয়া জীবন হতে পারে না। শ্রাবন্তী জীবনে ভাল থাকার গুরুত্ব বুঝতে পেরেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে অবশ্যই। তৃতীয়বার এতবড় একটা সিদ্ধান্ত নেওয়া যে কত কঠিন একটা মেয়ের কাছে তা আপনারাও হয়তো জানে না। পিঠ পিছে হাসার লোক চিরদিনছিল আছে থাকবে। কিন্তু শুধুমাত্র পাছে লোকে কিছু বলে, এই ভেবে ভেবে জীবন চলতে পারে না। সঠিক সময়ে সঠিক সিদ্ধান্ত নেওয়াটাই বুদ্ধিমানের পরিচয়।

আমরা premergolpo.com এর পক্ষ থেকে চাইব শ্রাবন্তীর আগামী দিনগুলো সুন্দর হোক। ভালবাসা আর ভালথাকায় পরিপূর্ণ হোক ওদের জীবন। সবাই এতবড় সিদ্ধান্ত একাধিকবার নেওয়ার সাহস পায় না। যারা এই সাহস রাখে সংসার তাদের। জিও শ্রাবন্তী। আর অবশ্যই ধন্যবাদ রোশনকে, ওর বিবেচনাকে। দু-দুবার বিবাহ বিচ্ছেদ হওয়া এক মেয়েকে (সে যতই নায়িকা হোক) নিজের জীবনের সঙ্গে জড়ানো মুখের কথা নয়। অনেক অনেক শুভেচ্ছা রইল দুজনের জন্যই।

আমাদের অন্যান্য লেখা পড়ুন

This website uses cookies.