Skip to toolbar
ভারত বনাম পাকিস্তান

ভারত বনাম পাকিস্তান

ভারত বনাম পাকিস্তান হলে মন্দ হয় না, ১৩ বছর হল দুটো দেশ একে অপরের মুখোমুখি দাঁড়িয়ে লড়াই করার সুযোগ পায় নি তেমন। এখন যদি দুই দেশ মুখোমুখি দাঁড়ায় তাহলে ভালই হয়।

ভারত বনাম পাকিস্তান  

২০০৭ সালের পর ভারত পাকিস্তান বিশ্বকাপ আর এশিয়াকপ ছাড়া মুখোমুখি হওয়ার সুযোগ পায় নি। ভারত পাক ম্যাচ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।  অথচ একসময় ভারত পাক ম্যাচ যুদ্ধের চেয়ে কম উত্তেজনার ছিল না।

ভারত পাক মানেই ছিল শচীন বনাম শোয়েব। বিশ্বের কোনও খেলায় এত দর্শক হয় না যত দর্শক হয় ভারত পাক ক্রিকেট ম্যাচ হলে। মাঠের বাইরে টিভির পর্দায় কয়েক কোটি লোক খেলার আঁচ অনুভব করেন।

সেই স্মৃতিকে সামনে রেখেই শোয়েব আকতার করোনা পরিস্থিতি একটু ঠিকঠাক হলে ভারত পাক ম্যাচের আয়োজন করার পরামর্শ দিয়েছেন। এতে করোনার সঙ্গে লড়াই করার জন্য অনেকটাা অর্থ উঠে আসবে।

 

শোয়েব আকতার বলেছেন,-

  এই দুঃসময়ে আপনাদের কাছে একটি প্রস্তাব নিয়ে এসেছি। করোনার ত্রাণ তহবিলে দু’দেশকেই সাহায্য করার উদ্দেশে তিন ম্যাচের ভারত-পাক ওয়ান ডে সিরিজ আয়োজন করলে কেমন হয়? এই সিরিজের ফল নিয়ে দু’দেশের মধ্যে রেষারেষি থাকবে না। এখানে কোহালি সেঞ্চুরি করলেও যে রকম আমরা খুশি হব, তেমনই বাবর আজ়ম বড় রান পেলে আপনারাও খুশি হবেন। মাঠে ফল যাই হোক, জিতবে দু’দলই।

ফাঁকা স্টেডিয়ামে ম্যাচ হবে। শুধুমাত্র টিভির পর্দায় ক্রিকেটভক্তরা উপভোগ করতে পারবেন এই সিরিজ। লকডাউন যদি চালু থাকে, তা হলে প্রত্যেকেই নিজেদের বাড়িতে থাকবেন। তাই সম্প্রচার থেকে অর্থলাভের সুযোগ প্রবল।’’ অনেক দিন ভারত-পাক ম্যাচ দেখতে পাননি সে কথা মনে করিয়ে দিয়ে শোয়েব বলছেন, ‘‘এত দিন পরে দু’দেশের দ্বৈরথ হলে ক্রিকেটপ্রেমীদের মধ্যে দারুণ আকর্ষণ তৈরি হবে। সম্প্রচার থেকে যে অর্থ উঠে আসবে, তা দু’দেশের মধ্যে সমান ভাবে ভাগ করে দেওয়া যেতে পারে। তাতে অনেক মানুষই উপকৃত হবেন বলে আমার মনে হয়।”

ভারত পাকিস্তান ম্যাচ হলে দর্শক নিয়ে যে চিন্তা হবে না সেটা অবশ্যই ঠিক বলেছেন শোয়েব আকতার। ভারত পাক ম্যাচ মানেই আগুন ঝরানো আবহাওয়া।

আশাকরি ২০০৩ এর বিশ্বকাপ আপনারা ভুলে যান নি। শচীন বনাম শোয়েব যুদ্ধে ৯৮ রানের আগ্নেয় ইনিংস উপহার দিয়ে শোয়েব আকতারের বলেই আউট হয়েছিলেন শচীন। সেদিন শচীন কাউকে ছাড়ে নি। শোয়েবকে অফসাইডে যে ছয় মেরেছিলেন তা ইতিহাস হয়ে থাকবে।

করোনার সঙ্গে লড়াই করার জন্য সত্যিই অনেক অর্থের প্রোয়জন, সেই কথা মাথায় রেখে ভারত পাক ক্রিকেট ম্যাচ হলে মন্দ হয় না।

শোয়েব আকতার বরাবর ভারতের বন্ধু। মাঠে শোয়েব ভারতের প্রধান শক্তিশালী শত্রু হলেও মাঠের বাইরে শোয়েবছিল ভারতের দারুন বন্ধু। শচীন সৌরভ যুবরাজ কাইফ সেওবাগ এরাছিল শোয়েবের খুব নিকটের প্রিয় মানুষ। আজও শোয়েব এদের বন্ধুই আছেন।

বিভিন্ন সময় শোয়েব ভারতের পাশে থেকেছেন। কমেট্রি করার ৩০% শোয়েব এদেশেই দিয়ে যেতেন। সেকথাও মনে করিয়েছেন শোয়েব আকার দ্যা রাউল পিন্ডি এক্সপ্রেস। দুনিয়ার দ্রুততম বোলার শোয়েব আকতাতের এই কথা দুদেশ ভাবে কি না সেটাই দেখার।

করোনা প্রতিরোধে কে কত দান করলেন দেখুন   

Spread the love

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

COVID-19

করোনা ভাইরাস সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য দেখুন