X

কারা ভেঙেছে বিদ্যাসাগর

বিদ্যাসাগর

আজ বিদ্যাসাগর মহাশয়ের মূর্তি ভাঙায় আপনি হতবাক হয়েছেন। কিন্তু আমি এক বিন্দুও অবাক হইনি। এটা আরও বাড়বে। পরিকল্পিত ভাবে স্কুলে শিক্ষক নিয়োগ বন্ধ করা হয়েছিল। পাশ-ফেল তুলে দেওয়া হয়েছিল। বিদ্যাসাগরকে ভেঙে দেওয়া হয়েছে অনেক আগেই। আপনি শুধু দেখতে পাননি।

শিক্ষা মানুষকে সচেতন করে। সুন্দর করে। প্রতিবাদ করতে শেখায়। তাই শিক্ষাকে শেষ করে দেওয়া হল। টাকা ঢালা হল ক্লাবে। বাড়ল মদের দোকান। ছাত্রছাত্রীদের বকাও যাবে না, আরও বেপরোয়া করা হল তাদের। শিক্ষক হলেন আরও কোন ঠাঁসা।
আপনি সেদিন কোথায় ছিলেন। যেদিন আমাদের রাজ্য শিক্ষা সংস্কৃতি হারিয়ে উল্টো পথে হাঁটতে শুরু করল? ভাবুন ভাবতে শিখুন।


আপনি দিব্যি নিয়েছিলেন মুখ বন্ধ করে রাখবেন। রেখেছিলেন। আপনি চুপচাপ মজা দেখছিলেন। পশ্চিমবঙ্গের শিক্ষা পোকায় কাটছিল, আপনি প্রতিবাদ করেননি। আজ সেই শিক্ষা না পাওয়া ছাত্রছাত্রীরা বেরিয়ে এসেছে স্কুল কলেজ থেকে। শুনলে অবাক হবেন বাঁকুড়া সারদামণি মহিলা মহাবিদ্যালয়ের বাংলা দ্বিতীয় সেমের এক ক্লাসে আমি জিজ্ঞেস করেছিলাম, তোমরা কে কি পত্রিকা পড়? আমি ঘাবড়ে গিয়েছিলাম যখন দেখলাম কেউ, হ্যাঁ কেউ জানে না পত্রিকা কী জিনিস। ওরা শুকতারা আনন্দমেলা দেশ এগুলোর নামও জানে না। আমি ঘামছিলাম ভেতর ভেতর। ভাবুন ভাবতে শিখুন। কলেজটি এ গ্রেড কলেজ। ভেতরের গল্প আর নাই বা বললাম, বিস্তারিত লিখব কোনও একদিন। সেদিন অনেককিছু জানবেন যা আরও ভয়ানক, সেদিন আপনিও ভয়ে কুঁকড়ে যাবেন।
আজ বিদ্যাসাগরের জন্য নয় মানুষ নিজের জন্য ভয় পাচ্ছে। কারণ অশিক্ষিত উন্মাদরা আজ রাস্তায় নেমেছে দলে দলে।

যদি আপনার ভেতর বিদ্যাসাগর থাকতেন তাহলে আপনি সেদিন প্রতিবাদ করতেন যেদিন ধর্ষণকে ছোট ঘটনা বলা হল। যেদিন মেয়েদের সম্ভ্রমের দাম রাখা হল ২০-৩০ হাজার টাকা। আপনি সেদিনও চুপ ছিলেন যেদিন হু হু করে বাড়ছিল নারী নির্যাতন। রেহায় পায়নি শিশুকন্যাও। অথচ বিদ্যাসাগর আজীবন মেয়েদের জন্য লড়েছেন, শিক্ষার জন্য লড়েছেন, সংস্কৃতির জন্য লড়েছেন।
আজ কয়েক লাখ বেকার ভাই-বোন দাদা-দিদি শুধু দীর্ঘশ্বাস ফেলছে যারা বেকার তৈরির কারখানায় আজ শ্রমিক হয়ে গেছে। যাদের স্বপ্নগুলো অতীত হয়ে গেছে। আপনি সেদিনও চুপছিলেন, আজও চুপ থাকুন। দরজা বন্ধ রাখুন। জানালা খুলবেন না। আর কেউ নিরাপদ নয়, কোনও রাজনৈতিক দল নয় অশিক্ষিত উন্মাদরা আজ রাস্তায়। তাই কোনও রাজনৈতিক দলকে দোষ দেবেন না, নিজের গালে চড় মারুন। এই অশিক্ষিত উন্মাদ তৈরির যজ্ঞে আপনার আমার অবদান কম নয়।

এবার আপনি বলুন কারা ভাঙল বিদ্যাসাগরের মূর্তি?

ভাবুন ভাবতে শিখুন।

This website uses cookies.