X

বাপ্পাদিত্যের কবিতা


 প্রতীক্ষা

আমি ভেজা চোখে দেখেছি সেই রাতে

কত বৃষ্টির ফোটা ঝরে ছিল আকাশে

যেতে হবে তাই গেছে মেঘ ফিরে অনিচ্ছায়

আজানা দরজায় যদিও যাযাবর জীবন আজীবন

তবুও চোখ  ছলছল ছিল তার,বর্ষার শেষে

বলেছিল সে-ফিরে পাবে আমায়,

 কোন এক বাদলা বেলায়,

স্মৃতির কানামাছি খেলায় আবার দেখা হবে।





আত্মঘাতি হামলা

আঙুলের ফাঁকে আত্মহত্যা রত বিপ্লবী সিগারেট

রেখে যায় কিছু গোপন আশা

ব্যথা বোলে কিছু নেই, প্রানপন প্রতিশোধ

প্রেমিকারেই মতো

পুড়িয়ে পোড়াব বলেই

নিষ্ঠুর চুম্বনে এত গোপন ভালোবাসা ।

          বাপ্পাদিত্য


দ্বিতীয় গৃহ যুদ্ধ

অন্তরবাসি বধূর সাথে দিনরাত যুদ্ধ,

জয় পাবার পর ক্লান্ত শরীরে আদিত্য

মিত্রার কাছে এসে বলেছিল-

দু চোখে ঘুম আঁকতে পারো মিত্রা

পারো যুগান্তরের মরু প্লাবন এক মুহূর্তে থামাতে !

বল পারকি আবার সাবানায় বৃষ্টি নামাতে?

          ডানা ভাঙা চাতকের মতো থরতর করে

          কাঁপছিল হাত, ঝরছিল অদৃশ্য রক্তের স্রোত শরীরে

          চোখে গড়িয়ে নামছিল ক্ষুধার্ত অন্ধকার, তবু

আদিত্য বলেছিল বারবার-

বল পারকি বিবাহিত হালখাতা ফেলে

সাবানায় সবুজ বাড়ি বানাতে !

          উত্তর দেয়নি মিত্রা ।

          শান দিচ্ছিল তলোয়ার ।

এক গৃহ যুদ্ধে জয় পেয়ে আদিত্য

ঝাঁপাল দ্বিতীয় গৃহ যুদ্ধে আবার ।

admin:

This website uses cookies.

Read More