বাক্সটা তা হলে বোকা নয়! World television day 2020


সৌমিত্র সেন

নিজস্ব প্রতিবেদন: ইডিয়ট বক্স নিয়েও তা হলে দিন ধার্য হয়! এ বছরের ওয়ার্ল্ড টেলিভিশন ডে আজ, ২১ নভেম্বর। খুবই ভাল কথা। দূরদর্শন ও গণমাধ্যম– দু’টির প্রেক্ষিতেই দিনটির তাৎপর্য অনুসন্ধানের লগ্ন আজ। অথচ টিভি তার জন্মলগ্ন থেকেই ‘বোকা বাক্স’ সমালোচনাটা শুনে আসছে।   
 
প্রযুক্তি যত এগিয়েছে, বিনোদন যত বিস্তার লাভ করেছে, মিডিয়া যত ব্যাপক হয়েছে তত যেন টেলিভিশন তার বিবর্তনের পথে, অগ্রগতির পথে নতুন নতুন মাইলফলক পেরিয়েছে। গড়ে নিয়েছে নিজের জন্য নতুন দিশা, স্থির করেছে ভিন্ন লভ্যমাত্রা। আর ততই সাধারণের জীবনে জড়িয়ে গিয়েছে টিভি। জড়িয়ে গিয়েছে তার ভালমন্দ সাদা-কালো নিয়েই।   

দিনটির এ বারের থিম হচ্ছে, ‘টু রেইজ অ্যাওয়ারনেস অ্যামঙ্গ পিপল অ্যাবাউট দ্য রোল টেলিভিশন প্লেজ ইন কমিউনিকেশন অ্যান্ড গ্লোবালাইজেশন।’ টিভি তো ব্রডকাস্ট মিডিয়া। মানবজীবনে সেই মিডিয়ার ভূমিকাটাও মনে করিয়ে দেওয়া দিনটির একটি লক্ষ্য।

এ সব তো কেজো কথা। অ-কেজো যা রইল তাই দিয়ে টিভিকে বুঝে নেওয়াটাও জরুরি। মনে পড়া স্বাভাবিক, আগেকার দিনে যখন সপ্তাহান্তে একটি মাত্র বাংলা ছবি দেখানো হত কলকাতা দূরদর্শনে তখন সেই দিনে শহরে যেন অঘোষিত কারফিউ জারি হত! কিংবা যখন সম্প্রচারিত হত ‘রামায়ণ’, ‘মহাভারত’ তখনও এক দৃশ্য। তারপর ক্রিকেট দেখানো শুরু হল। তখন টিভি ঘিরে আর এক নতুন উন্মাদনা। খবর পরিবেশনেও একটু-একটু নতুন দিনের রঙ লাগতে থাকল। জনসচেনতামূলক নানা অনুষ্ঠান নিয়মিত ভাবে সম্প্রচারিত হতে থাকল। 

তারপর তো কেবল-বিপ্লব ঘটল। টিভি নিয়ে সমাজের একটা অংশে যে একটা স্থিতাবস্থা তৈরি হয়েছিল সেখানেও নতুন করে যেন জোয়ার এল। সেই জোয়ারে ভেসে গেল সব ধরনের প্রজন্ম। অনেকগুলি চ্য়ানেলে অনেক রকম জিনিস উপভোগের দরজা খুলে গেল। টিভি যেন একটা সামাজিক প্রতীকে পরিণত হল। যা তখনও রেডিয়োর মতো ঘর-ঘরে ঢুকে যায়নি অথচ যার ক্ষেত্র তখন ক্রমশ রোজই নতুন করে তৈরি হতে থাকল। সেই নতুনত্বের মধ্যেই টিভি তার জন্য নতুন দিগন্ত খুঁজে নিল। ইন্টারনেট এসে যাওয়ার পরে অনেকেই টিভিকে বাতিল করে দিয়েছিল। কিন্তু দেখা গিয়েছে, সেই ধারণা অমূলক। টিভি আছে টিভিতেই। 

এবং আর সে বোকা নয়। এখন সে-ই নতুন প্রজন্মের কাছে নতুন দিনের তথ্য ও তত্ত্বের খনি, নতুন লাইফস্টাইল ও নতুন ভাবনা এনে দেওয়ার উৎসস্বরূপ। 

আসুন, বিশ্ব দূরদর্শন দিবসে আমরা অন্তত ওর ‘ডাক নাম’টা (যেটা ওর ‘খারাপ নাম’ও) বদলে দিই। জয় দূরদর্শনের জয়!





Source link

Spread the love

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.