Skip to toolbar

করোনা ভাইরাস খবর

প্রতি নিয়ত মানুষ করোনা ভাইরাস খরব নিচ্ছেন। করোনা বাড়ছে না করছে, আজকে করোনায় কতজন আক্রান্ত, আজকে করোনায় কতজন মৃত, মানুষ জানতে চাইছে নিয়ত।

আজকের করোনা ভাইরাস খবর 

করোনা ভাইরাস খবর যে মোটেও ভাল নয় তা হয়তো আপনিও জানেন। কেন ভাল নয় সেটাও হয়তো কিছুটা হলেও জানেন। ভারতে করোনা আক্রান্ত ২০০০+ হয়েছে মৃতের সংখ্যা ৫০+ হ্যাঁ ভারতের জনসংখ্যার তুলনায় ভারতে করোনা আক্রান্ত বা করোনায় মৃত অনেক কম। কিন্তু এই হিসেব বদলে যেতে মোটেও সময় লাগবে না।

ইতি মধ্যেই আপনি নিশ্চয় নিজামুদ্দিন সমাবেশ সম্পর্কে জেনেছেন। কিন্তু আপনি হয়তো বুঝতে পারছেন না এই নিজামুদ্দিন সমাবেশ ভারতে কতটা ভয়ানক প্রভাব ফেলবে।

আজ মানুষ নিজেদেরকে মূর্খ প্রমাণ করতে উঠেপড়ে লেগেছে। যারা ধর্মের নামে এই ভাইরাসকে ঘরে ঢোকাতে চাইছেন বা অলরেডি ঘরে ঢুকিয়ে ফেলেছেন তারা পারবেন তো নিজের পরিবারের মৃত্যু দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে দেখতে?

আজকে যারা আল্লার দোহাই দিয়ে বা রামের দোহাই দিয়ে মৃত্যুকে ঘরে ডেকে আনছেন তাদেরকে পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের হত্যা করার অধিকার কোন ধর্ম দিয়েছে বলতে পারবেন।  বিশ্বে এমন কোনও ধর্ম নেই যেখানে অন্যের সর্ব্বনাশের শিক্ষা দেওয়া হয়েছে।

আজকে যারা মূর্খের মতো আচরন করছেন তারা হয়তো কল্পনাও করতে পারছেন না ভবিষ্যৎ কতটা ভয়ানক হতে পারে। রোগ শোক ধর্ম মানে না, এই মূর্খতার জন্য দেশের লোকের চেয়েও পরিবারের লোককে বেশি বিপদে ফেলছেন।

এখন সময় ধার্মিক হওয়ার বা রাজনীতি করার নয় একন সময় করোনার হাত থেকে নিজেকে নিজের পরিবারকে দেশকে বাঁচানোর।

সেই ব্যক্তি সবচেয়ে বড় ধার্মিক যে নিজের পরিবারকে নিজের সন্তান সন্ততিকে পিতা মাতাকে এবং দেশকে নিরাপদ রাখার জন্য লড়াই করছেন।রাস্তায় বেরিয়ে হুল্লোড় করলে বা মন্দির মসজিদে গিয়ে জমায়েত করলেই ধর্ম হয় না।

যদিও মূর্খের কোনও ধর্ম নেই, যে ধর্ম কী তাই জানে না তাকেই ধার্মিক হওয়ার ভেক ধরতে হয়। যিনি সত্যিকারের ধার্মিক তিনি ঘরে বসেই ঈশ্বর বা আল্লার সেবায় নিজেকে নিয়োগ করতে সক্ষম।

আর যারা এই অধার্মিকদের কথায় রাস্তায় বেরিয়ে আসছেন ঘরের ভেতর মৃত্যু বয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য তারা অন্তত একবার নিজেদের ধর্মিয় বইগুলো পড়ুন, দেখুন সেখানে কী লেখা আছে। মূর্খের কথায় নাচবেন না এরা করোনা ভাইরাসের চেয়েও ভয়ানক। এদের কথা শুনলে আপনার ধর্মের ঈশ্বর আল্লা যীশু কেউ আপনাকে ক্ষমা করবেন না।

সরকারের বিরোধিতা করতে হলে সরকারের ভুলগুলোকে সবার সামনে তুলে ধরুন। সরকারের বিরোধিতা করতে গিয়ে দয়াকরে নিজেদের পরিবারের সর্ব্বনাশ করতে যাবেন না। করোনা ভাইরাস এর খবর আপনি চিন ইতালি স্পেন আমেরিকা থেকে পেয়েছেন পাচ্ছেন তারপরেও কেন এমন বোকামি করছেন!

করোনা ভাইরাস আপডেট

ভারতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে, এভাবে বাড়তে থাকলে শুধু মন্দির মসজিদগুলোই পড়ে থাকবে সেখানে  মানুষ থাকবে না।

সরকারের বিরোধিতা করা মানে এই নয় যে, সরকার বলল কেউ এখন বিষ খাবেন না, আর আপনি সরকারের কথা অমান্য করার জন্যই বিষ খেলেন।

সরকারের বিরোধিতা করার জন্য আগে বাঁচতে হবে, মরেই যদি গেলেন তাহলে সরকারের বিরোধিতা করেই লাভ কী হল বলুন। তাছাড়া সরকার তো ভুল কোনও সিদ্ধান্ত নেয় নি যে বিরোধিতা করবেন। এখন লকডাউন না মানা মানে মৃত্যুকে ডেকে নিয়ে আসা।

অন্যের কাছে নিজের বুদ্ধি জমা না রেখে নিজের বুদ্ধিতে ভেবে দেখুন এখন কী করা উচিৎ কী করা উচিৎ নয়। নিজের পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের মুখের দিকে তাকিয়ে দেখুন, ওদের মৃত্যু সইতে পারবেন?  ওদের মৃত্যুর দায় বইতে পারবেন?

আমাদের আন্তরিক অনুরোধ মূর্খের কথায় কান দেবেন না, নিজের বিবেক বুদ্ধি দিয়ে বিবেচনা করুন। তারপরেও যদি মনে হয় ঘরের চেয়ে মন্দিরে মসজিদে গেলে বেশি নিরাপদ থাকবেন তাহলে সত্যিই কিছু বলার নেই। ঈশ্বর আল্লা যীশু বুদ্ধ আপনার মাথায় সুবুদ্ধি দিন।

Spread the love

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

COVID-19

করোনা ভাইরাস সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য দেখুন