Skip to toolbar

প্রবল গতিতে ধেয়ে আসছে আমফান, বাংলায় আছড়ে পড়বে আগামীকাল

প্রবল গতিতে ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় আমফান। আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে বঙ্গোপসাগরে তৈরি হয়েছে এই মহা শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়। যা বাংলার মাটিতে আছড়ে পড়বে আগামীকাল।

ধেয়ে আসছে আমফান

আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর ইতিমধ্যে সতর্কবার্তা জারি করেছে পশ্চিমবঙ্গের বেশ কিছু জেলায়। প্রবল গতি নিয়ে শক্তিশালী আমফান ধেয়ে আসছে পশ্চিমবাংলার দিকে। বঙ্গোপসাগর এবং ভারত মহাসাগরের বেশ কিছু এলাকা জুড়ে তৈরি হয়েছে এই ঘূর্ণিঝড়।

ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় আমফান

এই ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাব পড়বে বাংলাদেশেও এমনটাই জানাচ্ছে আবহাওয়া দপ্তর।

৩০ কিলোমিটার থেকে ৪০ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টায় তীব্রগতিতে ঝড়ো হাওয়া বইবে বাংলার আকাশে।

উত্তর ২৪ পরগনা দক্ষিণ ২৪ পরগনা সহ বাঁকুড়া পুরুলিয়া তেও প্রভাব পড়তে চলেছে এই ঘূর্ণিঝড়ের। শনিবার রাতেই আমফান প্রবেশ করবে বাংলায়। রবিবার থেকে প্রভাব বিস্তার করতে শুরু করবে এই ঘূর্ণিঝড়। ঝড়ো হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে প্রবল বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া দপ্তর

ঘুর্ণিঝড় সহ অতিবৃষ্টির সম্ভাবনা বাংলায়

উত্তরবঙ্গ সহ আসামের বেশ কিছু এলাকাতেও এই ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাব পড়বে বলে জানা যাচ্ছে। আন্দামান নিকোবর দ্বীপপুঞ্জ সবচেয়ে বেশি প্রভাব পড়বে ঘূর্ণিঝড়ের।

এই কালবৈশাখী বাংলায় প্রবেশ করবে ৭০ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টা গতিবেগে নিয়ে। পরে এই গতিবেগ কিছুটা হলেও কমবে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া দপ্তর।

৩ রা মে থেকে ৫ ই মে পর্যন্ত এই ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাব থাকবে। এই দুদিন সর্বোচ্চ তাপমাত্রা থাকবে ৩৪ এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রা থাকবে ২৩ এর কাছাকাছি।

ঘূর্ণিঝড়ের সঙ্গে প্রবল বৃষ্টি এবং বজ্রপাতের সম্ভাবনা রয়েছে বলেও জানা যাচ্ছে।

ইতিমধ্যেই দক্ষিণবঙ্গে বেশ কয়েকদিন ধরেই হয়ে চলেছে ভারী বর্ষণ, শনিবারের আকাশ দুপুর থেকে মেঘমুক্ত হলেও রবিবার দিন যদি আমফান এসে পড়ে তাহলে প্রবল ঘূর্ণিঝড়ে প্রচুর ছোটবড় গাছ ভেঙে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

৫ তারিখের পর আমফান তার গতিপথ কোনদিকে পরিবর্তন করে সে দিকেই চেয়ে রয়েছে আবহাওয়া দপ্তর।

Spread the love

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

COVID-19

করোনা ভাইরাস সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য দেখুন